ডায়াবেটিস হলে কি কি সমস্যা হয় | ডায়াবেটিস কত হলে নরমাল

ডায়াবেটিস হলে কি কি সমস্যা হয় | ডায়াবেটিস কত হলে নরমাল

ডায়াবেটিস হলে কি কি সমস্যা হয় | ডায়াবেটিস কত হলে নরমাল – ডায়াবেটিস বর্তমানে মারাত্নক রুপ ধারন করেছে। অল্প বয়স্কদেরও এই রোগ দেখা দিচ্ছে। এই রোগ এমন একটি রোগ যা একবার হলে আর পুরোপুরি ঠিক হয় না। ডায়াবেটিস হলে মানুষের অন্যান্য রোগও বেড়ে যায়। তাই আমাদের আগে থেকেই সচেতন হতে হবে যেন ডায়াবেটিস রোগ না হয়।

সম্মানিত ভিজিটর, এই আর্টিকেলে আমরা আপনাদের কে জানাবো ডায়াবেটিস হলে কি কি সমস্যা হয় এবং ডায়াবেটিস কত হলে নরমালন। আমাদের সবার এই রোগ ও এর সমস্যা গুলো সম্পর্কে জানা দরকার। এই রোগ হলে আমাদের শরীরের শর্করার মাত্রা বেড়ে যায়। এর ফলে রক্তনালীর ক্ষতিসাধন হয় এবং রক্তনালী ঠিকমত কাজ করে না।

ডায়াবেটিস হলে কি কি সমস্যা হয় | ডায়াবেটিস কত হলে নরমাল
ডায়াবেটিস হলে কি কি সমস্যা হয় | ডায়াবেটিস কত হলে নরমাল

ডায়াবেটিস হলে কি কি সমস্যা হয়

এখন আমরা আপনাদের জানাবো ডায়াবেটিস হলে কি কি সমস্যা হয়। এটি জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সম্পুর্ন আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন। ডায়াবেটিস হলে বিভিন্ন ধরনের জটিলতা দেখা যায়। এর মধ্যে দুই ধরনের জটিলতা বেশি দেখা যায়। যেমন- ১। দীর্ঘস্থায়ী জটিলতা ও ২। সাময়িক জটিলতা।

দীর্ঘস্থায়ী জটিলতা

দীর্ঘস্থায়ী জটিলতা বলতে বোঝায় ডায়াবেটিস হওয়ার পর ধীরে ধীরে যে সমস্যা গুলো জটিল আকার ধারন করে। আমাদের খেয়াল রাখতে হবে ডায়াবেটিস হলে যেন জটিল আকার ধারন না করে। সমস্যা জটিলতার দিকে গেলে গুরুতর ক্ষতি সাধন হতে পারে। নিম্নে ডায়াবেটিস হওয়ার কারনে দীর্ঘস্থায়ী যে সমস্যা গুলো হয় সেগুলো নিয়ে আলোচনা করা হলো।

ডায়াবেটিস রেটিনোপ্যাথী– ডায়াবেটিস বেড়ে গেলে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয় তার মধ্যে ডায়াবেটিস রেটিনোপ্যাথী একটি গুরুত্বপূর্ন সমস্যা। ডায়াবেটিস রেটিনোপ্যাথী হলে আপনার চোখের দৃস্টিশক্তির মারাত্নক ক্ষতি হয়। চোখ পরিক্ষা করে দেখতে হবে এই রোগ আছে কিনা। যদি থাকে তাহলে দ্রুত ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ খেতে হবে। এই রোগে চোখের রেটিনার রক্তনালী গুলো ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার কারনে দৃষ্টিশক্তি কমে যায়।

ক্যাটারেক্ট বা চোখের ছানিঃ মানুষের বয়স বাড়ার সাথে সাথে চোখে ক্যাটারেক্ট বা ছানি পড়ে থাকে। তবে আপনার যদি ডায়াবেটিস থাকে তাহলে চোখে ছানি পড়ার সম্ভাবনা থাকে অনেক বেশি। এজন্য ডায়াবেটিস যেন না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। এছাড়াও ডায়াবেটিস হলে চোখের আরেকটি রোগ গ্লোকোমা হতে পারে। আপনার যদি গ্লোকোমা দেখা দেয় তাহলে দ্রুত ডাক্তার এর পরামর্শ নিতে হবে।

অন্যান্য সমস্যাঃ আপনার যদি ডায়াবেটিস হয়ে থাকে তাহলে আরোও অন্যান্য রোগ হতে পারে। যেমন- পায়ের সমস্যা, হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোক,  কিডনির সমস্যা (নেফ্রোপ্যাথি), স্নায়ুর ক্ষতি (নিউরোপ্যাথি), মাড়ির রোগ এবং মুখের অন্যান্য সমস্যা, যৌন সমস্যা।

অ্যাকিউট বা সাময়িক জটিলতাঃ

যারা ডায়াবেটিসে আক্রান্ত তারা বিভিন্ন রোগে ভুগে থাকেন। তাদের শরীরে যেকোন সময় যেকোন কিছু হতে পারে। বিভিন্ন সাময়িক সমস্যার মধ্যে কিছু সমস্যা নিচে তুলে ধরা হলো।

হাইপোস বা হাইপোগ্লাইসেমিয়াঃ আপনি যদি ডায়াবেটিস এ আক্রান্ত হয়ে থাকেন তাহলে অনেক সময় আপনার শরীরের রক্তে শর্করার পরিমান অনেক কম হয়। সাধারণত প্রতি লিটারে চার মিলিমোল এর কম হয়ে থাকে।

হাইপারস বা হাইপারগ্লাইসেমিয়া: ডায়াবেটিস রোগীর হঠাৎ করেই রক্তে শর্করার পরিমান বেড়ে যায় এটিকে হাইপারস বা হাইপারগ্লাইসেমিয়া বলে থাকে। এই অবস্থায় রক্তে শর্করার পরিমান খাবারের আগে সাত মিলিমোল পার লিটার এর উপরে এবং খাবারের দুই ঘন্টা পরে আট দশমিক পাঁচ মিলিমোল পার লিটার এর উপরে থাকে।

অন্যান্য সমস্যাঃ যারা ডায়াবেটিসে আক্রান্ত তারা আরোও কিছু সাময়িক সমস্যায় পড়ে থাকেন যেমন হাইপারওসমোলার হাইপারগ্লাইসেমিক স্টেট (এইচ এইচ এস), ডায়াবেটিক কিটোঅ্যাসিডোসিস (ডিকেএ) ইত্যাদি।

অন্য আর্টিকেল পড়ুনঃ ডায়াবেটিস কত হলে মানুষ মারা যায় | ডায়াবেটিস কত হলে ইনসুলিন নিতে হয়

ডায়াবেটিস কত হলে নরমাল

ডায়াবেটিস কত হলে নরমাল এই প্রশ্নটির উত্তর মানুষ সবসময় জানতে চায়। এর উত্তর জানতে আমাদের প্রথমে ডায়াবেটিস পরিক্ষা করে দেখতে হবে। ডায়াবেটিস পরিক্ষার বিভিন্ন পদ্ধতি রয়েছে। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে এইচবিএ১সির মান ৫.৭-এর নিচে থাকলে তাহলে সেটি নরমাল। পরিক্ষা করে যদি দেখা যায় যে ৬.৫-এর বেশি তাহলে সেটি ডায়াবেটিস হয়েছে বলে ধরা হয়। হলে ডায়াবেটিস আছে বলে ধরা হবে। যদি এই মান ৫.৭ থেকে ৬.৫-এর মধ্যে হয় তাহলে সেটি প্রি-ডায়াবেটিস বা ডায়াবেটিসের পূর্বাবস্থা হিসেবে ধরা হয়।

সম্মানিত ভিজিটর, আশা করি আপনারা এই আর্টিকেল পড়ে বুঝতে পেরেছেন ডায়াবেটিস হলে কি কি সমস্যা হয় | ডায়াবেটিস কত হলে নরমাল। বিভিন্ন রোগ এর বিষয়ে জানতে এবং অন্যান্য বিষয়ে জানতে আমাদের ওয়েবসাইট এর আর্টিকেলগুলো নিয়মিত পড়ুন।

আরোও আর্টিকেল পড়ুনঃ

শিশু বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ঢাকা | শিশু বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের তালিকা

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top